1. admin@bazzrokolom.com : bazzrokolom.com :
সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ১১:৩৬ অপরাহ্ন

যশোরের বাজারে ফলের দাম-দর

  • প্রকাশিত: শনিবার, ১৮ জুলাই, ২০২০
  • ২৬ বার পড়া হয়েছে

এস পারভেজ কৌশিক: বর্তমান বিশ্ব মরণঘাতী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত। বাংলাদেশও এ মহামারীতে হিমশিম অবস্থা। খুলনা বিভাগে যশোরের করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ পরিস্থিতিতে ডাক্তাররা পরামর্শ দিচ্ছেন বেশি করে ফলমূলের স্বাদ নিতে। যশোরবাসী এ করোনার মধ্যে পরিবার-পরিজনদের জন্য ফলমূল ক্রয় করতে বেশ বেগ পোহাতে হচ্ছে।

কারণ তাদের আয় রোজগার আগের মতো নেই। আজ (১৭/০৭/২০) সকালে চুয়াডাঙ্গা বাসস্ট্যান্ড বাজার ঘুরে দেখা গেছে দেশি-বিদেশি ফলের দামে তেমন পরিবর্তন নেই। তবে বিদেশি মৌসুমি ফলের দাম বেশি। ছোট কমলা বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ১২০-১৮০ টাকা। বড় বেদানা প্রতি কেজি বিক্রি হয় ১৮০- ২৩০ টাকা। গালা আপেল বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ১৫০- ১৮০ টাকা। লাল আঙুর প্রতি কেজি বিক্রি হয় ৩০০- ৩২০ টাকা। বড় মাল্টা বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ২০০-২২০ টাকা।

তবে দেশি ফলের দাম অপরিবর্তিত আছে। রাজশাহীর বড় ফজলি, হাড়িভাঙ্গা, আমরুপালী আম প্রতি কেজি বিক্রি হয় যথাক্রমে ৬০-৭০, ১০০-১২০, ৫০-৬০ টাকা। তবে আশ ফলের দাম বেড়ে প্রতি শ ১৫০- ১৬০ টাকা হয়েছে। সাগর কলা, সবরি কলা ১২টি বিক্রি হয় যথাক্রমে ৪০-৫০, ৪০-৭০ টাকা। আর চাপা কলা প্রতি ছড়ি ৪০-৫০ টাকা। ৪০ টাকা থেকে ৫০ টাকা বিক্রি হয় প্রতি কেজি পেয়ারা। আখ বিক্রি হচ্ছে প্রতি পিছ ৩০-৪০ টাকা।

রসালো ফল আনারস প্রতি জোড়া ৮০-৯০ টাকা বিক্রি হয়। ফল বিক্রেতা আলিম বলেন ‘ ব্যবসা ভাল যাচ্ছে না।লসের ভাগটা এখন বেশি। কোন রকম লাভ হয়।’ফল ক্রেতা আবুল কালাম গাজী বলেন ‘ গত বছরের চেয়ে বেশি দামে কিনতে হচ্ছে।তাই চাপ পড়ে যাচ্ছে। ‘

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© স্বর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
এই ওয়েবসাইটের লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

প্রযুক্তি সহায়তায় মাল্টিকেয়ার