1. admin@bazzrokolom.com : bazzrokolom.com :
রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ০৬:৪৮ পূর্বাহ্ন

অবহেলায় নষ্ট হচ্ছে মূল্যবান শিশু গাছটি

  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ১৭ বার পড়া হয়েছে

এস পারভেজ: ঘূর্ণিঝড় আম্ফান বাংলাদেশের উপর দিয়ে অতিক্রম করেছে প্রায় চার মাসের অধিক সময়। চালিয়েছে ব্যাপক ধ্বংসযজ্ঞ। বিদ্যুতের পিলারসহ অনেক বাড়িঘর ভেঙে পড়ে। বহু গাছপালার মূলোৎপাটন হয়। ব্যাক্তি উদ্যোগে ও বনবিভাগের প্রচেষ্টায় গাছগুলোর অধিকাংশ গ্রাম ও শহর এলাকা থেকে অপসারণ হয়।

কিন্তু যশোরের মনিরামপুর উপজেলার ১নং রোহিতা ইউনিয়নে বাসুদেবপুর মাঠপাড়া গ্রামের বাসুদেবপুর সিদ্দিকীয়া দাখিল মাদ্রাসার মাঠে এখনো পড়ে আছে মোটা একটি শিশু গাছ। রবিবার (২১ সেপ্টেম্বর) সরেজমিনে এ প্রতিবেদক দেখতে পায় মাদ্রাসাটি ১৯৭১ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রশাসনিক ভবনটি পাকা আর বাকী ভবনগুলো টিনের চালা। মাদ্রাসার প্রশাসনিক ভবনের সামনের মাঠে হেলে পড়েছে প্রায় পঁচিশ বছরের একটি শিশু গাছ। হেলে পড়া গাছের ডালে ছোট বাচ্চারা লাফালাফি করছে। পা পিছলে গেলে ঘটে যেতে পারে বড় কোন দুর্ঘটনা। মাঠের মধ্যে মোটা গাছ পড়ে থাকাতে গ্রামের ছেলেরা খেলাধুলা করা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। তারা এদিক সেদিক অলস সময় পার করছে।

নাম প্রকাশ না করা সত্ত্বে গ্রামবাসী বলেন, গাছটি মাঠে পড়ে আছে বহুদিন, কেউ খোজ রাখে না। এমনকি মাদ্রাসার সুপার গাছটি সরানোর ব্যবস্থা করেনি। দামী গাছটি নষ্ট হচ্ছে। গ্রামের ছেলে মেয়েরা খেলার জায়গা পাচ্ছে না।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বাসুদেবপুর সিদ্দিকীয়া দাখিল মাদ্রাসার সুপার মাওলানা মো. হারুন-অর-রশিদ বলেন, “বর্তমানে মাদ্রাসার পরিচালনা কমিটি নেই। আমি ইউএনও স্যার ও ফরেস্ট অফিসারের সাথে গাছ সরানোর বিষয়ে কথা বলেছি।”

যশোর বন কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মো.আব্দুল খালেক বলেন, “গাছটি জেলা পরিষদ না বন বিভাগের তা খোজ নিয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে।”

মনিরামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ জাকির হাসান বলেন, “সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান প্রধান আমাকে লিখিত ভাবে জানালে আমি বন বিভাগকে গাছটির মূল্য নির্ধারণের জন্য পাঠাবো এবং মূল্য নির্ধারণের পর মিটিংয়ের মাধ্যমে টেন্ডার করে গাছটি বিক্রি করে প্রতিষ্ঠানের ফান্ডে টাকা জমা করা হবে।”

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© স্বর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
এই ওয়েবসাইটের লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

প্রযুক্তি সহায়তায় মাল্টিকেয়ার